অনলাইনে ছবি বিক্রি করে আয়

বর্তমানে আমরা সবাই কম বেশি ছবি তোলতে পচ্ছন্দ করে। কিন্তু আমরা অনেকেই জানিনা, ছবি তোলে কিভাবে আয় করা যায়।

আপনি চাইলে অনলাইনে ছবি বিক্রি করে আয় করতে পারেন। ছবি তোলা কারো নেশা আবার কারো পেশা। ছবি তোলে ছবি বিক্রি করে আপনি বাড়তি টাকা আয় করতে পারেন।

ডিএসএলআর ক্যামেরা বা একটি ভালো মোবাইল হলে আপনি ফটোগ্রাফি করতে পারেন। অনলাইনে ছবি বিক্রর মজার বিষয় হলো গ্রাফিক্স এর অত কাজ জানতে হয় না। অল্প কিছু এডিটিং এর কাজ করে তুলা ছবি অনলাইন মার্কেটপ্লেসে বিক্রি করতে পারেন।

আসলে ছবি তোলা বেশ সখের একটি কাজ। আমরা প্রায় প্রতিদিন সখের সাথে বিভিন্ন ধরনের ছবি তোলে সেগুলো ফেসবুক ও ইনস্ট্রাগ্রামে আপলোড করি। কিন্তু সেখান থেকে আমাদের কোন লাভ হয় না। অথচ আপনার একটি ডিএসএলআর থাকলে নিজের ছবি তুলার পাশাপাশি প্রকৃতির বিভিন্ন দৃশ্য সহ আরো বিভিন্ন ধরনের আকর্ষণীয় জিনিসগুলো নিয়ে ফটোগ্রাফি করে খুব সহজে অনলাইনে ছবি বিক্রি করতে পারেন।

আমরা আজকের এই পোষ্টে ছবি তোলে অনলাইনে ছবি বিক্রি করে আয় করা যায় এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। আপনারা এই আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়ুন.....

কিভাবে অনলাইনে ছবি বিক্রি করে আয় করবেন?

অনলাইনে ছবি বিক্রি করার জন্য কোন ক্লায়েন্ট খুজতে হয় না। ছবি বিক্রি করার আগে আপনাকে অনলাইনে একটি একাউন্ট তৈরি করতে হবে। আপনার একাউন্টে ভালোমানের কয়েকটি ছবি আপলোড করতে হবে। আপনার ছবিগুলো দেখে যাচাই বাছাই করে তাদের ভালো মনে হলে তারা আপনাকে অনুমোদন দিবে। আপনার প্রোফাইল অনুমোদন করলে ছবি আপলোড করতে পারবেন।

কেন কিনেন, কারা কনেন

বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বিজ্ঞাপনী সংস্থা, গণমাধ্যম, ব্লগ ও অনলাইন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো মূলত তাদের কাজে ব্যবহারের জন্য ছবি কিনে থাকে। যাদের যে ধরনের ছবি প্রয়োজন তারা সে ধরনের ছবি কিনে থাকে। যেমন ভ্রমন, শিক্ষা, চিকিৎসা, প্রাকৃতিক দৃশ্য, ফ্যাশন, সামাজিক পরিবেশ খাবার ইত্যাদি ছবি হতে পারে। যারা আপনার ছবি কিনবে তারা তাদের কাজের জন্য কপিরাইট মুক্ত ছবি দিতে হবে। গুগলে সার্চ করে সরাসরি  কপিরাইটমুক্ত ছবি না পাওয়ার আশষ্কা থাকে। তাই তারা সরাসরি গুগল থেকে ছবি না নিয়ে অনলাইন বাজার থেকে তারা তাদের প্রয়োজন অনুযায়ী কপিরাইটমুক্ত ছবি কিনে।

কোন ধরনের ছবি তুলবেন?

ফটোগ্রাফির মাধ্যমে অনলাইনে আয় করার জন্য কিছু ক্যাটাগরি রয়েছে। চাহিদা অনুযায়ী আপনি অনলাইন বাজারে রিসার্চ করবেন কোন ধরনের ছবি মানুষ বেশি কিনে।

সে অনুযায়ী আপনি ছবি তুলতে পারেন। এটাও খেয়াল রাখতে হবে আপনার ছবির রেট কেমন। কোন ধরনের ছবিতে কি পরিমানে টাকা দেয় তা আপনার জানা প্রয়োজন। এ বিষয়ে না জানলে আপনি ছবি বিক্রি করে বেশি টাকা আয় করতে পারবেন না।

১। এবস্ট্রাক্ট

এটা এক ধরনের নিখুত ফটোগ্রাফি যা সহজেই বুঝা যায়। সাধারণত অনেক ছোট ছোট বিষয় নিয়ে ফটোগ্রাফাররা কাজ করে থাকে।

২। আর্ট

অনেকেই শখের কারণে হাতে ছবি আর্ট করে থাকি। এ ধরনের আর্ট করা ছবি দেখতে অনেক সুন্দর হয়। এই ক্যাটাগরির ছবি দেখতে মানুয়ের আলাদা একটি শখ জাগে মনে ছবিটি কিনে নেয়। আপনি হাতে আর্ট  করা ছবি বিক্রি করে আয় করতে পারবেন। কারণ এই ধরনের ছবি বাজারে কিছু চাহিদা রয়েছে। হাতে আর্ট করা ছবি আপনি অনলাইন বাজারে বিক্রি করে আয় করতে পারেন।

৩। ফ্যাশন

বর্তমানে আমরা সাবাই কম বেশি ফ্যাশন করে থাকি। অনলাইন অফলাইন উভয় মার্কেটপ্লেসে ফ্যাশন ডিজাইনের মান অনেক বেশি রয়েছে। আপনি নিজে মডেল করে ছবি তুলেন বা অন্য মডেলার ও অভিনয় শিল্পিদের ছবি তুলে অনলাইনে আপলোড করতে পারেন। তাছারা বিভিন্ন ফ্যাশন ডিজাইনের ফটোগ্রাফার হয়ে আপনি আয় করতে পারেন।

৪। প্রাকৃতিক দৃশ্য

আমাদের চারপাশে যা কিছু দেখি সবই প্রাকৃতিক দৃশ্য। আমারা অনেকেই প্রাকৃতিক দৃশ্য দেখতে পায় না। গুগলে সার্চ করে প্রাকৃতিক দৃশ্য দেখতে হয়। আমাদের দেশ নদী মাতৃক ও চিরসবুজের দেশ হওয়ার কারনে প্রকৃতি নিয়ে ফটোগ্রাফাররা খুব সহজে কাজ করতে পারে। প্রকৃতির সাথে পশু পাখি দেখা যায় এর কারণে ফটোগ্রাফারদের ছবি তুলতে অনকে সহজ হয়। এসব মিলিয়ে দেখতে অনেক সুন্দর দেখা যায়। ছবির কাজ করতে বেশি কষ্ট হয় না।

৫।  ভ্রমন

সবাই কম বেশি ভ্রমন করতে পছন্দ করি। যারা ভ্রমন করতে বেশি ভালোবাসেন তারা এ কাজটি খুব সহজেই করতে পারেন। আপনি দেশ বিদশে বিভিন্ন জায়গায় ভ্রমন করতে গিয়ে সুন্দর সুন্দর জায়গাগুলোর দর্শনীয় স্থানের ছবি তুলে অনলাইনে বিক্রি করে আয় করতে পারবেন।

৬। খাবার

আমরা প্রতিনিয়ত খাবার খাই বাড়িতে বা রেস্টুরেন্টে। খাবার খাওয়ার সময় আমরা ছবি তুলে থাকি। এই ছবি আবার ফেসবুকে আপলোড করি। ফেসবুকে আপলোড না করে ছবিগুলো অনলাইন বাজারে বিক্রি করে কিছু টাকা আয় করতেপারবেন।

৭। ভালোবাসা

ভালোবাসা ও আবেগ পূর্ণ ছবি প্রতিটি মানুষকে সবসময় আকৃষ্ট করে। ছবিতে মানুষের আবেগ, অনুভূতি ও ভালোবাসা ফুটে উঠে এমন মুহুর্তের ছবি তুলতে পারলে। এধরনের ছবিগুলো মানুষ অনেক পছন্দ কর। আপনি সেগুলো খুব সহজেই অনলাইনে বিক্রি করে ভালোমানের টাকা আয় করতে পারবেন।

অনলাইনে ছবি বিক্রি করে কত টাকা আয় করা যায়?

আপনি বিভিন্ন ওয়েবসাইটে ছবি বিক্রি করে আয় করতে পারেন। ছবি বিক্রি করে কমিশন ভিত্তিক আয় করতে পারেন। আপনার প্রত্যেকটি ছবি যে দামে বিক্রি হবে তা সম্পূর্ণ টাকা আপনাকের দেওয়া হবে না। ওয়েবসাইটের মালিক আপনাকে ২০ থেকে ৭০ % পর্যন্ত ছবির দাম দিবে। বাকি টাকা ওয়েবসাইট মালিকের থাকবে।

তবে একজন বিক্রেতা যদি একটি ছবি একটি নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটে বিক্রি করে তাহলে সে ক্ষেত্রে বেশি টাকা সম্মানী পাবেন। আর একটি ছবি অনেক গুলো ওয়েবসাইটে দেয় তাহলে সম্মানী কম পাবেন। এখানে আরেকটি বিষয় হলো আপনার ছবি যত বেশি বিক্রি হবে আপনি তত বেশি টাকা পাবেন।  সম্মানীর পরিমাণ কম হলেও ছবি বিক্রির পরিমাণ বেশি হলে মার্কেটপ্লেস থেকে বেশি আয় করা সম্ভব।

এখানে আপনার ছবি বিক্রির উপর আয় নির্ভর করে। আপনার ছবি যতবার বিক্রি হবে ততবার টাকা পাবেন। আপনার ছবি প্রত্যেক বার বিক্রির জন্য হিসাব করে দেওয়া হবে। আপনার ছবি যদি ৫ ডলার দিয়ে বিক্রি হয় এবং ছবিটি ১০০ বার বিক্রি হয়, আপনাকে ৪০% করে সম্মানী দেওয়া হয় আপনি ৫ × ৪০% × ১০০=২০০ আয় করতে পারবেন।

এভাবে আপনি প্রতি মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করতে পারবেন। আপনার ধৈর্য্য ও শ্রম দিয়ে আয় করা সম্ভব।

ছবি কোথায় বিক্রি করবেন?

ছবি বিক্রি করার জন্য অনেক ওয়েবসাইট বা মার্কেটপ্লেস রয়েছে। ছবি বিক্রি করার জন্য অনেক শর্ত রয়েছে। এখন আমরা এ বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো।

১. নিবন্ধন করার আগে মার্কেটপ্লেসের শর্তাবলি ভালোভাবে জেনে নেওয়া।

২. বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে স্থান পাওয়া ছবিগুলো দেখে ছবির মান ও ধরন সম্পর্কে ধারণা নেওয়া।

৩. ছবির রেজল্যুশন ও উচ্চতা-প্রস্থের অনুপাত সম্পর্কে সচেতন থাকা।

৪. ছবিতে আলোর পরিমাণ যথাযথ রাখা।

৫. ছবিটি কেনার পর ক্রেতার যেন খুব বেশি সম্পাদনার প্রয়োজন না পড়ে, সেদিকে নজর রাখা।

৬. বাংলাদেশ থেকে টাকা তোলা যাবে কি না।

৭. কত শতাংশ সম্মানী হিসেবে পাওয়া যাবে।

৮. কত দিন পরপর টাকা তোলা যাবে।

৯. সর্বনিম্ন কত টাকা তোলা যাবে।

সবারই মনে প্রশ্ন জাগে, আমার ছবি কোথায় বিক্রি করবো। প্রশ্ন জাগাটাই স্বাভাবিক তার জন্য আমরা আপনারদের জন্য বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় মার্কেটপ্লেসগুলো সর্ম্পকে আলোচনা করবো। আপনারা এই মার্কেটপ্লেসগুলোতে ছবি বিক্রি করে লক্ষ লক্ষ টাকা উপার্জন করতে পারবেন।

১.শাটারস্টক (shutterstock)

শাটারস্টক বিশ্বের সবচাইতে জনপ্রিয় ফটোগ্রাফি মার্কেটপ্লেসের মধ্যে একটি। অনলাইনে ছবি বিক্রি করার জন্য সবচেয়ে ভালো একটি প্লাটফ্রম। এখানে ছবি আপলোড করে ভালো পরিমানে আয় করতে পারবেন।

অনলাইনে ছবি বিক্রি করার জন্য শাটারস্টক নাম করা একটি ওয়েবসাইট। এই ওয়েবসাইট থেকে ছবি বিক্রি করে আপনি আয় করতে পারেন।

এখানে ছবি বিক্রি করলে ২০-৩০% কমিশন দেওয়া হয়। আপনার ছবি যত বার বিক্রি হবে আপনি তত বার টাকা পাবেন। এভাবে আপনি লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করতে পারবেন।

আপনি যদি আপনার প্রকল্পের জন্য কপিরাইট মুক্ত স্টক ফটোগুলি সন্ধান করে থাকেন তবে শাটারস্টকের কাছে বেছে নিতে 300 মিলিয়নেরও বেশি রয়্যালটি-মুক্ত ছবি রয়েছে। 

আপনারা এই ওয়েবসাইট থেকে ১০টি বিনামূল্যে স্টক নিতে পারেন। শাটারস্টকে আপনি কপিরাইট মুক্ত ছবি খুব সহজেই পাবেন। এখান থেকে আপনাদের প্রয়োজনীয় কপিরাইট মুক্ত ছবি নিতে পারেন।

২.আই-স্টক ফটো (I Stock)

স্টক ফটোগুলি এমন কোনও ফটোগ্রাফ যা সৃজনশীল ব্যবহারের জন্য লাইসেন্স নিতে পারে। একজন ফটোগ্রাফার ভাড়া নেওয়ার পরিবর্তে, আপনি ডাটাবেস থেকে অনুসন্ধান করতে পারেন এবং দ্রুত আপনার প্রকল্পের কাজের জন্য ফটোগুলি সংরক্ষণ করতে পারবেন। 

আই-স্টক ফটো বিক্রি করে আপনি হাজার হাজার টাকা আয় করতে পারবেন। আপনাদের পছন্দের ছবি বিক্রি করে আয় করতে পারেন। এই ওয়েবসাইট থেকে প্রতি মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করে থাকে। আপনি চাইলে এই ওয়েবসাইট থেকে আয় করতে পারবেন।


৩. স্টক ফটো (Stock Photo)

যে কেউ স্টক ফটোতে ছবি আপলোড করে আয় করতে পারেন। এখানে হাজার হাজার মানুষ ছবি আপলোড করে আর টাকাও আয় করে থাকে। আপনিও এখানে ছবি আপলোড করে আয় করতে পারেন।

স্টক ফটো এ ১৩০ মিলিয়নেরও বেশি ছবি আছে। স্টক ফটো থেকে কপিটাইট মুক্ত ছবি কিনে থাকে। যারা ব্লগিং করে থাকে তাদের কপিরাইট মুক্ত ছবির প্রয়োজন হয়। তারা স্টক ফটো থেকে ছবি কিনে থাকে।

এখানে আপনি ছবি আপলোড করে আয় করতে পারেন।


আপনারা যারা ছবি তুলতে পছন্দ করেন তারা এই আর্টিকেলটি পড়লে কিছু বুঝতে পারবেন। আপনারা বিনোদনের মাধ্যেমে ছবি তুলে আয় করতে পারেন। সে জন্য আমরা আপনাদের জন্য আর্টিকেল লিখেছি।


Post a Comment

0 Comments